উত্তরাঞ্চলে ক্যান্সার রোগী ৮ বছরে ৫ গুণ হয়েছে ॥  দৈনিক জনকন্ঠ ॥ মে ১০, ২০১৯

  • বগুড়া হাসপাতালে যন্ত্রপাতির মেয়াদ শেষ

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনের দিক তাকালে চোখে পড়বে না। একটু এগুলেই, পেছনের দিকে অবস্থান বগুড়া মেডিক্যাল কলেজের অনকোলজি বা ক্যান্সার চিকিৎসা বিভাগ। তবে উত্তরাঞ্চলের ব্যস্ততম এই মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (শজিমেক) সামনের অংশে ক্যান্সার বিভাগের অবস্থান না হলেও রোগীর চাপ হাসপাতালের অন্যান্য বিভাগের মতো সমানতালে বেড়েই চলছে। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে উত্তরাঞ্চলে ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। শজিমেকের রোগীর সংখ্যা পর্যালোচনা করে চিকিৎসকরা বলছেন, গত আট বছরে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৫ গুণেরও বেশি। আর অতিরিক্ত রোগীর চাপে যে কোন সময় বন্ধ হওয়ার পথে শজিমেকের রেডিওথেরাপি মেশিন- লিনিয়ার এক্সিলিয়েটর (লাইনাক)। রেডিওথেরাপি মেশিনটির ইক্যুপমেন্ট লাইফ পার হয়েছে অনেক আগেই। তারপরেও নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে অনেক বেশি রোগীকে প্রতিদিন থেরাপি দিতে হচ্ছে পরিস্থিতি বিবেচনায়। ক্যান্সার বিভাগের চিকিৎসকসহ অন্য লোকবলের সঙ্কটও ক্রমান্বয়ে রোগীর সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা বাড়িয়ে তুলছে। নতুন নতুন রোগীর চাপের কারণে রেডিওথেরাপি মেশিনটি যে কোন সময় বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকসহ কর্তৃপক্ষ। ক্যান্সার বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, আগামী ২ মাস অর্থাৎ জুলাই মাস পর্যন্ত রেডিওথেরাপির সিডিউল পূর্ণ রয়েছে। তারপরেও আসছে নতুন রোগী। এতে সিডিউল ঠিক রাখাসহ মেশিনটি চালু রাখা অসম্ভব অবস্থায় পৌঁছেছে। দ্রুত এর বিকল্প নতুন মেশিন স্থাপনসহ বর্তমান মেশিনের আপগ্রেডেশন না হলে এখানকার ক্যান্সার বিভাগের চিকিৎসা মুখ থুবড়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। Read more

0 0 vote
Article Rating